২৮ বছর পর মন্ত্রী পেল পিরোজপুর-১ আসনের জনগণ

প্রকাশ : ০৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৫৫

প্রায় তিন দশক ধরে মন্ত্রী বঞ্চিত পিরোজপুর-১ (পিরোজপুর সদর-নাজিরপুর-স্বরূপকাঠি) আসনের জনগণ অবশেষে এবার মন্ত্রিপরিষদে একজন সদস্য পেয়েছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিমকে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী করা হয়েছে। 

নাজিরপুর উপজেলার তারাবুনিয়া গ্রামের কৃতী সন্তান অ্যাডভোকেট শম রেজাউল করিম প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েই মন্ত্রীত্ব পেলেন।

এর আগে ১৯৯০ সালে জাতীয় পার্টি (এরশাদ) এর মন্ত্রী সভায় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন একই উপজেলার বরইবুনিয়া গ্রামের মোস্তফা জামাল হায়দার।  

প্রসঙ্গত, ৩০ ডিসেম্বর (রবিবার) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী (দেলু রাজাকার) এর ছেলে শামীম সাঈদী বিপুর ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম। তিনি ভোট পেয়েছেন ৩,৩৮,৬১০। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ২০ দলীয় জোট জামায়াতের প্রার্থী শামীম সাঈদী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন ৮,৩০৮ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছে।

ছাত্র জীবন থেকেই তিনি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগ করেছেন। ১৯৮০ সালে খুলনা দৌলতপুর সরকারি কলেজের ছাত্র সংসদের ভাইস প্রেসিডেন্ট (ভিপি), ১৯৮১ সালে খুলনা কৃষি কলেজের সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ছিলেন। ১৯৮৯ সালে নাজিরপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। পরে ১৯৯০ সাল থেকে অদ্যবধি জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য হিসেবে কাজ করছেন।

অপরদিকে মোস্তফা জামাল হায়দার ১৯৪২ সালে ১০ ডিসেম্বর মাটিভাংগা ইউনিয়নের বরইবুনিয়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯৮৫ সনে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে জাতীয় পার্টির মন্ত্রী সভায় যোগদান করেন। পরবর্তীতে পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে শ্রম ও জনশক্তি, পূর্ত, ভূমি, মৎস্য ও পশুপালন (সংশোধিত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়), স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ে দায়িত্ব ছিলেন। তিনি জাতীয় হুইপ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত